বাংলাদেশফুটবল, ক্রিকেট, হকি, কাবাডি, কুটনীতি যেখানেই হোক পাকিস্তানকে হারানোর মজাই আলাদা। ১৯৭১ সালে দীর্ঘ ন’মাস ব্যাপী নিরাপরাধ বাঙালির ওপর পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর বর্বরোচিত ও পৈশাচিক হামলার বিভৎস চিত্র আজও বীর বাঙালি ভুলে যায়নি। তাই আমাদের ঘৃণা তাদের প্রতি কখনই শেষ হবে না। রাষ্ট্রীয়ভাবে আনুষ্ঠানিক ক্ষমা প্রার্থনা না করলে এর বহিঃপ্রকাশ এমনটিই হবে। যার নিদর্শন আমরা দেখলাম টি-২০ এশিয়া কাপে পাকিস্তানকে হারানোর পর। তবে এবার জমেছে খেলা। শত্রুপক্ষকে হারিয়ে মিত্রশক্তির মোকাবেলা।

আজকের বিজয় হবে গৌরবের। ভারত আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রামে প্রথম বন্ধু। বাংলাদেশকে স্বাধীন করতে ভারত সরকার ও জনগন যে সহযোগিতা করেছে তা বাঙ্গালী হৃদয়ে অম্লান চিরদিন চির ঋনী হিসেবে। স্বাধীনতার পর থেকে ভারতের সাথে কিছু বিষয় অমীমাংসিত অথবা কোথাও কোথাও বিতর্ক থাকলেও দুই দেশের সম্পর্ক খারাপ হয়নি কখনোই। আজকের বাংলাদেশ ক্রিকেটেও ভারতের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহযোগিতা রয়েছে।

আবার গত বিশ্বকাপ থেকে ভারতের সাথে এই ক্রিকেটেই চলেছে স্নায়ূযুদ্ধ। বাংলাদেশ যখন ওয়ান ডে ও টেস্ট স্ট্যাটাস পায় তখন আইসিসি র প্রেসিডেন্ট ছিলেন প্রয়াত জাগমোহন ডালমিয়া। বাংলাদেশ ওয়ান ডে স্ট্যাটাস পাওয়ার পর স্বল্পতম সময়ের মধ্যে টেস্ট স্ট্যাটাস পায়। এই দুই ক্ষেত্রে স্ট্যটাস পেতে জাগমোহন ডালমিয়া নিজ উদ্যোগে বিসিবি কে সহযোগিতা করেছেন।

যদিও ভারত এখনও বাংলাদেশকে টেস্ট সিরিজ খেলতে আমন্ত্রন জানায়নি। বাংলাদেশের টেস্ট অভিষেক হয়েছে কিন্তু ঢাকায় ভারতের বিপক্ষে। সব মিলিয়ে বন্ধু রাষ্ট্র ভারতের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ খেলতে নামছে এশিয়া কাপ ২০১৬ ফাইনাল। দুই দলই দারুন ফর্মে।

বাংলাদেশের মানুষের এখন একটাই প্রত্যাশা ২০১২ তে ফাইনালে জিততে পারেনি বাংলাদেশ এবার পারবে। পাকিস্তানকে হারিয়ে ফাইনালে উঠার পর ভারতকে হারিয়ে শিরোপা জিতে এই এশিয়া ক্রিকেটে নিজেদের শ্রেষ্টত্বের জানান দেবে মাশরাফি বাহিনী।

এ বিজয়ে থাকবেনা কোন দীনতা, থাকবে না কোন ঘৃণা। বিজয়ের আনন্দে উদ্বেলিত ও উদ্ভাসিত হোক বীর বাঙালি। জয় হোক টাইগারদের, জয় হোক বাংলার ১৬ কোটি মানুষের।

মোহাম্মদ আলাউদ্দিন ভূইয়ামোহাম্মদ আলাউদ্দিন ভূইয়া
প্রধান শিক্ষক, বাতাকান্দি স সা আ আ হো মেমো উচ্চ বিদ্যালয়।
তিতাস,কুমিল্লা।
সম্পাদক, সাপ্তাহিক কালপুরুষ।

Share

আরও খবর