১৯ এপ্রিল, স্পোর্টস ডেস্কঃ চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে কাল বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। ‘হ্যাটট্রিক’ করেছেন রেফারি ভিক্টর কাসাইও, ভুলের হ্যাটট্রিক! তিন-তিনটি ভুল সিদ্ধান্ত দিয়েছেন এই হাঙ্গেরিয়ান রেফারি। চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে বাদ পড়ার পর তাই রেফারিকে ধুয়ে দিচ্ছেন বায়ার্নের খেলোয়াড়রা। স্ট্রাইকার থমাস মুলার তো বলেছেন, ১০ জনের বায়ার্ন ১৪ জনের বিপক্ষে খেলেছে!

রেফারির বিতর্কিত সিদ্ধান্তের শুরু ম্যাচের ৮৪ মিনিটে। আগের সপ্তাহে শেষ আটের প্রথম লেগে নিজেদের মাঠে ২-১ গোলে হারা বায়ার্ন তখন রিয়ালের মাঠে একই ব্যবধানে এগিয়ে। দুই লেগ মিলিয়ে তখন ৩-৩ সমতা। এমন সময়ে বৈধভাবে ট্যাকলের পরও বায়ার্নের মিডফিল্ডার আর্তুরো ভিদালকে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখান রেফারি। ফলে বায়ার্ন পরিণত হয় ১০ জনের দলে। রেফারির বাকি দুটি ভুল অতিরিক্ত সময়ে। অতিরিক্ত সময়ে রোনালদো যে দুটি গোল করেছেন, টিভি রিপ্লেতে দেখা গেছে দুটি গোলের সময়ই পরিষ্কারভাবে অফসাইড পজিশনে ছিলেন রিয়াল ফরোয়ার্ড।

ম্যাচের পর মুলার রেফারিং নিয়ে সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘আপনি যদি ম্যাচের দিকে তাকান, এটা খুবই কঠিন যখন ১০ জনের দল নিয়ে ১৪ জনের বিপক্ষে খেলবেন। ২-২ স্কোরলাইন খুব বাজে ছিল, সহকারী রেফারি স্পষ্ট দেখতে পেয়েছিল। এটাই আমাদের হত্যা করেছে। যখন আমরা ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে, তখন মানসিকভাবে ভালো অবস্থানে ছিলাম। তখনো আমাদের ১১ জন খেলোয়াড় মাঠে ছিল। কিন্তু রেফারি আমাদের পালের হাওয়া বদলে দিয়েছেন। এখানে (বার্নাব্যুতে) যা ঘটল তাতে “এমনটা হতে পারে” বলে আপনি বাড়ি যেতে পারেন না।’

প্রথমার্ধে ইসকোকে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেছিলেন ভিদাল। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই তিনি আরেকটি ফাউল করেছিলেন, কিন্তু তখন তাকে কোনো হলুদ কার্ড দেখাননি রেফারি। মুলার মনে করছেন, তখন ভিদাল কার্ড দেখতে পারতেন, কিন্তু যখন দেখেছেন তখন নয়, ‘আর্তুরো সম্ভবত আগেই মাঠ ছাড়তে পারত। কিন্তু যে অবস্থায় সে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখেছে, তখন অবশ্যই নয়।’ মুলারের মতো ফ্রাংক রিবেরি, আরিয়েন রোবেনও রেফারিং নিয়ে সমালোচনা করেছেন।

Share

আরও খবর