সুখ শান্তি

সমাজে মহামারি আকারে যে দূর্ভোগের উপদ্রব তা হল “সুখের অসুখ”। সবকিছুতেই সুখ থাকা চাই। এখন আর গরমে হাত পাখা কিংবা বৈদ্যুতিক পাখার বাতাসে চলে না, শীতে আর দেশি কাঁথা কম্বলে চলে না এমনকি পায়ে হাঁটা দূরত্বের পথ টুকুও রিকসা বা গাড়ি ছাড়া চলছে না। আর মানুষ হবার শিক্ষায়ও ধরেছে ঘুণ! এতে আর এই সমাজের চলছে না। মানুষ হতে পারুক না পারুক ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার বা ব্যবসায়ী হতে পারাটাই সফলতার মাপকাঠি।

সমাজে বড় হতে হলে শুধু মানুষ হলে চলছে না, অজস্র পরিমানে সুখ কিনতে পারার ক্ষমতা সম্পন্ন কোন পেশার অধিকারী হওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কে কত বড় মানুষ তা নির্ধারণ করে দিচ্ছে কে কত দ্রুত কতবেশি পরিমানে সুখ ক্রয় করার ক্ষমতা অর্জন করে বা উপার্জন করে থাকে।

টাকা বা মুদ্রা কে “অর্থ” আখ্যা দিয়ে গোটা সমাজকে এর পিছনে লেলিয়ে দেওয়ার কাজটি বেশ সফলভাবেই করা গেছে।

ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, শিক্ষক, ব্যবসায়ী সকল পেশায় কে কত সফল তা নির্ভর করে প্রতি ঘন্টায়, দিনে বা মাসে কে কত কাগুজে নোট পকেটে পুরতে পারে তার উপর।

সকলেই ছুটছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর সুখের পিছনে। ফলে সমাজে যে অসুস্থ প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে তার ঘূর্ণিপাকে পড়ে নষ্ট হচ্ছে আমার শৈশব। চুরি যাচ্ছে বিকেলের সোনা রোদ, আবেদন হারিয়েছ শিশির ভেঁজা নরম ঘাসের শুভ্রতা।

যে ছোট্ট শিশুটি খেলতে খেলতে বেড়ে উঠার কথা, সেও বাবা-মায়ের ফরমায়েসি কর্মচারীতে পরিনত হয়েছে। ৫ বছরের ছোট্ট শিশু ঘুম থেকে উঠেই স্কুলে ছুটছে ৮/১০ কেজি ওজনের ব্যাগ নিয়ে। স্কুল থেকে স্যারের বাসা, স্যারের বাসা থেকে ফিরে এসে নিজের বাসা এরপরেও রেহাই নেই নিজের বাসায় আসেন স্যার মানে গৃহশিক্ষক। এ যেন একটু পরিবর্তিত ধারায় বা একটু নতুন আঙ্গিকে আবাসিক শিশুশ্রম। এই শিশুশ্রমের উদ্দেশ্য কিন্তু মনুষত্বের বিকাশ ঘটানো নয়; শুধুই পুঁজিবাদী সমাজব্যবস্থায় ভবিষ্যত ক্রয় ক্ষমতা অর্জনের যুদ্ধ!

একটু সাহস করে হলেও বলেই ফেলি আমার নিজের পর্যবেক্ষনটা। সকল পেশার লক্ষ্য এক তা হল ক্রয় ক্ষমতা অর্জন। সেটা অর্জন করতে গিয়ে ভিন্ন ভিন্ন পেশাকে ব্যবহার করছে মাত্র।

তাইত খুব কম সংখ্যক পেশাজীবিকে হিসেবের বাহিরে রেখে বলা যায়, ভোগের সংস্কৃতিতে ব্যাকুল হয়ে পথ হারিয়েছে প্রতিটি পেশা। সুখ আর শান্তির পার্থক্য কমতে কমতে প্রায় সমার্থক হয়ে ভোগবিলাসে একাকার। লক্ষ্য আর লক্ষ্য অর্জনের উপায় এক হয়ে যাচ্ছে। কবি গুরুর একটি গানের কয়েকটি কথা মনে পড়ে গেল, “ওরা সুখের লাগি চাহে প্রেম / প্রেম মেলে না। শুধু সুখ চলে যায়”——।

মাহফুজুল ইসলাম সাইমুম।
তারিখঃ ০৪-০১-২০১৬।

Share

আরও খবর