১৭ জানুয়ারি, অনলাইন ডেস্কঃ সাধারণত মানুষের সঙ্গে মানুষের বিয়ে হয়ে থাকে। কিন্তু কখনো কি শুনেছেন ভূতের সঙ্গে মানুষের বিয়ের কথা। শুনতে উদ্ভট মনে হলেও সম্প্রতি এমনটাই ঘটেছে আয়ারল্যান্ডে। ভূতকে বিয়ে করেছেন দেশটির আমান্ডা তেগ নামের পঁয়তাল্লিশ বছর বয়সি এক নারী।

দীর্ঘদিন ধরে জীবন সঙ্গী খুঁজছিলেন আমান্ডা। অনেক খোঁজাখুজির পরও যখন মনের মতো কারো দেখা পাননি তখন সঙ্গী হিসেবে বেছে নিয়েছেন তিনশ বছর আগে মারা যাওয়া জ্যাক স্পারো নামের এক জলদস্যুর ভূতকে।

তবে ভূত বিয়ে করার সিদ্ধান্ত এক দিনে নেননি আমান্ডা তেগ। ঘটনার শুরু ২০১৪ সালের এক রাতে। প্রতিদিনের মতো আমান্ডা রাতের খাওয়া সেরে বিছানায় শুয়ে ছিলেন। হঠাৎ তিনি অনুভব করলেন তার পাশে কেউ একজন শুয়ে আছে।

প্রথমে চমকে গেলেও পরক্ষণেই নিজেকে সামলে নেন যখন জ্যাকের আত্মা তার সঙ্গে কথা বলা শুরু করে। এরপর গত চার বছর তারা চুটিয়ে প্রেম করেছেন, একে অপরকে জেনেছেন।

কথাগুলো আমার আপনার কাছে বানানো কাহিনি মনে হলেও আমান্ডার কছে তা সত্য। আর দশটা নারীর মতো আমান্ডাও তার ভূত স্বামীকে নিয়ে দিব্যি সুখে শান্তিতে ঘর সংসার করছেন। নিজের বিয়ে নিয়ে এক সংবদামধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে আমান্ডা বলেন, ‘সে আমার আত্মার আত্মীয়। তাকে নিয়ে আমি সুখে আছি। যারা অলৌকিক সম্পর্কে বিশ্বাস করেন না তাদের জন্য আমার এই বিয়ে একটা বার্তা।’

Share

আরও খবর