১৬ মার্চ, অনলাইন ডেস্কঃ জনসংখ্যা সমস্যা নয়, বরং দক্ষ জনশক্তিই বিপুল সম্ভাবনার ক্ষেত্র। ষোলো কোটি মানুষের মেধা আর বত্রিশ কোটি দক্ষ কর্মীর হাতের পরশে যে কোনো ইতিবাচক পরিবর্তন সম্ভব। কী নেই আমাদের। বাংলাদেশের মাটির নিচে লুকিয়ে আছে সম্পদের বিশাল ভাণ্ডার। তেল, গ্যাস, কয়লা, চুনাপাথর, তামা, লোহা, গন্ধক, নুড়িপাথর, শক্ত পাথর ও বালুর মতো অফুরন্ত সম্পদকে কাজে লাগাতে পারলেই হলো। বাংলাদেশ কৃষিনির্ভর দেশ থেকে ক্রমেই শিল্পনির্ভর দেশে পরিণত হচ্ছে। নানা সম্ভাবনার বাংলাদেশ মাথা উঁচু করে দাঁড়াচ্ছে, এ ভূমির সন্তানরাও সর্বত্র মেধা, বুদ্ধি, দক্ষতার সাক্ষর রেখে দেশ-জাতিকে আরও গৌরবদীপ্ত করে তুলেছে।

গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক অন্তত ২২টি প্রতিষ্ঠান ও শীর্ষ পর্যায়ের পদ-পদবিতে বাংলাদেশের নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা পাচ্ছে। গত কয়েক বছরে ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন, কনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ), জাতিসংঘের মর্যাদাপূর্ণ মানবাধিকার কাউন্সিল, আইটিআই, ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল স্যাটেলাইট অর্গানাইজেশন, এশিয়া-প্যাসিফিক ইনস্টিটিউট ফর ব্রডকাস্টিং ডেভেলপমেন্টের মতো প্রভাবশালী সংগঠনেরও মূল দায়িত্ব পেয়েছে বাংলাদেশ। আন্তর্জাতিক এসব সংগঠনে হাড্ডাহাড্ডি নির্বাচনের মধ্যেই বাংলাদেশি প্রতিনিধিরা নির্বাচিত হয়েছেন। তা ছাড়া বিশ্বশান্তি রক্ষায় জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনেও বরাবরের মতো নেতৃত্ব দিচ্ছে বাংলাদেশ। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সংসদ সদস্যের সংগঠন ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের (আইপিইউ) সভাপতি নির্বাচিত হন সাবের হোসেন চৌধুরী এমপি। ১২৫ বছরের বনেদি এই সংগঠনটি বিশ্বের সংসদীয় রাজনীতির প্রাণকেন্দ্র হিসেবেই পরিচিত। এই প্রথমবারের মতো কোনো বাংলাদেশি সংগঠনটির সভাপতিত্ব লাভ করল। একইভাবে কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর এমপিদের সংগঠন কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (সিপিএ) সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। ১৯৭৩ সালে কমনওয়েলথে যোগদানকারী বাংলাদেশ এবারই প্রথম নেতৃত্ব দেওয়ার কর্তৃত্ব পেয়েছে। ৫৩ সদস্যবিশিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ এই আন্তর্জাতিক ফোরামে নারী নেতৃত্বও বিশেষ দৃষ্টান্ত হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। এবারের নির্বাচনে ১৭৫টি আইনসভার ৩২১ জন ভোটার ছিলেন।

বিশ্বশান্তি রক্ষায় জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে বরাবরের মতো নেতৃত্ব দিচ্ছে বাংলাদেশ। বর্তমানে জাতিসংঘ মিশনে প্রায় ১০ হাজার সেনা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য রয়েছেন। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীর হয়ে বিশ্বব্যাপী শান্তিরক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার স্বীকৃতি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে বাংলাদেশ। গত বছর ‘থ্যাঙ্কস এ পিস কিপার’-এর ব্যানারে এক কংগ্রেশনাল সংবর্ধনায় ইউনাইটেড নেশনস অ্যাসোসিয়েশন-ইউএনএ এবং বেটার ওয়ার্ল্ড ক্যাম্পেইন যৌথভাবে এই অ্যাওয়ার্ড দেয়। বাংলাদেশের পক্ষে ওয়াশিংটন বাংলাদেশ দূতাবাসের রাজনৈতিক কাউন্সিলর নাঈম উদ্দিন আহমেদ এই অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করেন। বেলজিয়ামে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ইসমত জাহান ‘নারীর বিরুদ্ধে বৈষম্য বিলুপ্ত কমিটির (সিডো) সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। এ ছাড়াও এশিয়া-প্যাসিফিক ইনস্টিটিউট ফর ব্রডকাস্টিং ডেভেলপমেন্টের (এআইবিডি) নির্বাচনে দুই বছরের জন্য সহসভাপতি নির্বাচিত হয় বাংলাদেশ। কম্বোডিয়ায় সংগঠনটির ১৩তম সাধারণ অধিবেশনে গোপন ব্যালটে এ নির্বাচন হয়। এটি টেলিভিশন ও রেডিওর সক্ষমতা ও প্রশিক্ষণ সংক্রান্ত বিশটি দেশের প্রভাবশালী সংগঠন হিসেবে পরিচিত রয়েছে।

রাসায়নিক অস্ত্রনিরোধী বিশ্বসংস্থার মতো গুরুত্বপূর্ণ সংগঠনেরও নেতৃত্ব লাভ করেছে বাংলাদেশ। ‘পারসন অব দ্য ইয়ার-২০১৭’ তালিকায় প্রথম স্থান অধিকারী চিকিৎসক শাফি আহমেদ ব্রিটেনে ‘সবচেয়ে প্রভাবশালী’ বাংলাদেশি হিসেবে সম্মাননা পেয়েছেন। ‘ব্রিটিশ বাংলাদেশি পাওয়ার অ্যান্ড ইনসপায়ারেশন’ (বিবিপিআই) তাকে এ সম্মাননা দিয়েছে। তিনি চিকিৎসা ব্যবস্থায় অভিনব চিন্তার প্রয়োগ, কঠোর পরিশ্রম ও তুখোড় মেধা দিয়ে সাফল্যের শিখরে পৌঁছেন। ভার্চুয়াল রিয়েলিটি তৈরি করে অপারেশন থিয়েটারের ৩৬০ ডিগ্রি দেখানোর মাধ্যমে তিনি একযোগে ১৩২টি দেশের ১৪ হাজার শিক্ষার্থীকে ট্রেনিং দিতে সক্ষম হন। চিকিৎসক শাফির ভিন্নধর্মী এই উদ্যোগ চিকিৎসাবিজ্ঞানে ভার্চুয়াল রিয়ালিটির ক্ষেত্রে ‘পথিকৃৎ’ বলে মনে করছে বিবিপিআই। যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট নির্বাচনে জয় পেয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্রী টিউলিপ সিদ্দিক। লেবার পার্টি থেকে নির্বাচিত টিউলিপ ব্রিটিশ পার্লামেন্টে লন্ডনের হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসনের প্রতিনিধিত্ব করবেন। দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে জায়গা করে নিয়েছেন রূপা হক। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে ২২ হাজার ২ ভোট পেয়ে যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট নির্বাচনে জয় পেয়েছেন তিনি। মরক্কোর মারাকাশ জলবায়ু সম্মেলনে এবার স্বল্পোন্নত দেশগুলোর নেতৃত্ব দিয়েছে বাংলাদেশ। কার্বন নিঃসরণ কমানো ও জলবায়ু তহবিলে অর্থায়নে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর পক্ষে নেতৃত্ব প্রদানকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২০ সালে প্যারিস চুক্তি কার্যকরের ব্যাপারে কঠোর অবস্থান নেন। ইন্টারন্যাশনাল থিয়েটার ইনস্টিটিউটের (আইটিআই) সভাপতি হিসেবে টানা দ্বিতীয়বারের মতো দায়িত্ব পালন করছেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার। এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সৈয়দ আশরাফুল হক। এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি হিসেবে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বাংলাদেশের এককালের ম্যারাডোনা-খ্যাত স্টাইলিশ ফুটবলার, মুক্তিযোদ্ধা সালাহউদ্দিন আহমেদ।

Share

আরও খবর