গাছ৩ সেপ্টেম্বর, ইন্টারন্যাশনাল ডেস্কঃ সম্প্রতি এক হিসাবে দেখা গেছে, বিশ্বে গাছের সংখ্যা ৩ লাখ কোটি। এর আগের এক হিসাবে বলা হয়, বিশ্বে গাছ আছে ৪০০ বিলিয়ন। কিন্তু নতুন হিসাবে দেখা যাচ্ছে, গাছের সংখ্যা আগের চেয়ে আট গুণ বেশি।

বিবিসি অনলাইনের এক খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক থমাস ক্রাউথার ও তার সহকর্মীরা মিলে নতুন হিসাব করেছেন। স্যাটেলাইটের ছবি নিয়ে গবেষণা করে বৃক্ষের সংখ্যা নির্ণয় করেছেন তারা।

দ্য নেচার জার্নালে এ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। নেচার জার্নালকে গবেষকরা জানিয়েছেন, নতুন হিসাবমতে বিশ্বে প্রত্যেক মানুষের জন্য ৪২০টি করে গাছ আছে।

বিশ্বে এখন যে গাছের সংখ্যা পাওয়া গেছে, তা নিয়ে নতুন করে বৃহৎ পরিসরে কাজ হতে পারে। জীববৈচিত্র্য রক্ষায় জলবায়ুর নতুন মডেল দাঁড় করানো যেতে পারে। বায়ুমণ্ডল থেকে কার্বন ডাই-অক্সাইড গ্যাস শোষণ করে বৃক্ষরাজি। ফলে জলবায়ুর বিপর্যয় রুখতে গাছ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

তবে গবেষক ড. ক্রাউথার বলেছেন, গাছের সংখ্যা বাড়লেই সমস্যার সমাধান হবে না। তিনি বিবিসিকে বলেন, ‘বিষয়টি এমন নয় যে, আমরা নতুন করে বৃক্ষরাজি আবিষ্কার করেছি। বিষয়টি এমনও নয় যে, আমরা নতুন করে কার্বনমণ্ডল খুঁজে পেয়েছি। ফলে গাছের যে নতুন সংখ্যা আমরা জানতে পেরেছি, তা বিশ্বের জন্য নতুন বা পুরোনো কোন খবর নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিশ্বের বনাঞ্চলে কী পরিমাণ গাছ আছে, তা হিসাব করেছি আমরা, যেন লোকজন তা জানতে পারে এবং বিজ্ঞানীরা এ তথ্য ব্যবহার করতে পারে। এ ছাড়া পরিবেশবাদীরা যেন বনাঞ্চল সম্পর্কে ধারণা পায় এবং নীতিনির্ধারকরা আমাদের এ তথ্য কাজে লাগাতে পারে, সে জন্যই আমরা বৃক্ষ গণনা করেছি।’

বিশ্বের বনাঞ্চলকে ৪ লাখ প্লটে ভাগ করে উপাত্ত সংগ্রহ করেছে গবেষক দল। এরপর তা বিশ্লেষণ করে তথ্য দিয়েছে। গবেষণায় দেখা গেছে, গ্রীষ্মমণ্ডলীয় বনভূমি বা বনাঞ্চলে গাছের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

Share

আরও খবর