৩ জানুয়ারি, নিজস্ব প্রতিনিধিঃ২০১৬ সালে প্রযুক্তি খাতে ঘটেছে অনেকগুলো আলোড়ন সৃষ্টিকারী ঘটনা। এককথায় বলতে গেলে ২০১৬ সালটি প্রযুক্তিখাতের জন্য একটি ঘটনাবহুল একটি বছর।

এ বছর প্রযুক্তিখাতে ঘটেছে অনেকগুলো বড় বড় কেলেঙ্কারি যা সারা বিশ্বকে নাড়া দিয়ে গেছে। স্মার্টফোনে ব্যাটারি বিস্ফোরিত হয়ে আগুন লাগা থেকে শুরু করে বড় বড় হ্যাকিং- মোটকথা এমন কোনো কেলেঙ্কারি নেই যা এ বছর ঘটেনি।

কারো বিলিয়ন ডলার লোকসান হয়েছে আবার কেউ সহজেই বিলিয়ন ডলার হাতিয়ে নিয়েছেন। হয়েছে একাধিক পেটেন্ট মামলাও। তবে আশার কথা হল এব ছর অনেকগুলো নতুন স্টার্টআপের পথচলা শুরু হয়েছে।

কিন্তু বছর শেষে সব ছাপিয়ে কেলেঙ্কারিগুলোই রয়েছে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে। প্রযুক্তি খাতে চলতি বছরের আলোচিত ২০টি কেলেঙ্কারি নিয়ে দুই পর্বের প্রতিবেদনের শেষ পর্বে ১০টি ঘটনা তুলে ধরা হল।

স্যামসাং গ্যালাক্সি ৭ নোট বিস্ফোরণ : গত আগস্টে স্যামসাংয়ের ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস গ্যালাক্সি ৭ নোট বিস্ফোরিত হয়ে আগুন ধরার খবর ইন্টারনেটের মাধ্যমে সারা বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে। এই ঘটনায় স্যামসাং দ্রুত তাদের এই ফোনসেটটি মান পরীক্ষার জন্য বাজার থেকে সরিয়ে নেয়। সেপ্টেম্বরে প্রায় ১ মিলিয়ন ফোন আক্রান্ত হওয়ায় ১৫ সেপ্টেম্বরের আগে বিক্রিত সকল ফোনসেট বদলে দেয়ার ঘোষণা দেয়। কিন্তু বদলে দেয়া সেই ফোনেরও বিস্ফোরিত হওয়ার খবর পাওয়া যায়। অক্টোবরে কোম্পানিটি তাদের গ্যালাক্সি নোট ৭ উৎপাদন বন্ধ করার ঘোষণা দেয় এবং বিশ্বব্যাপী বিক্রিও বন্ধ করে দেয়।

অ্যাপলের হেডফোন জ্যাকবিহীন আইফোন : গত সেপ্টেম্বরে মার্কিন প্রযুক্তি কোম্পানি অ্যাপল বাজারে নিয়ে আসে আইফোনের সর্বশেষ সংস্করণ। কিন্তু ডিভাইসটিতে প্রচলিত হেডফোন ব্যবহারের জন্য ৩ দশমিক ৫ মিলিমিটার জ্যাক রাখা হয়নি। তার পরিবর্তে তারা বাজারে ছাড়ে এয়ারপডনামের একটি ব্লুটুথ ওয়্যারলেস হেডফোন। যদিও কোম্পানিটি সে সময় হেডফোন জ্যাক না রাখার পক্ষে বিভিন্ন যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করে। কিন্তু প্রযুক্তিপ্রেমীদের কাছে প্রতিষ্ঠানটির সে যুক্তি হাস্যরসের জোগান দিয়েছে।

ক্যাপিটালিস্ট গ্রেটহাউসের নারীবিদ্বেষী মন্তব্য : গত সেপ্টেম্বরে বিশ্বের বিখ্যাত ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্ট জন গ্রেটহাউস প্রযুক্তি খাত-সংশ্লিষ্ট নারীদের বিষয়ে একটি বিদ্বেষীমূলক মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, তাদের (নারীদের) জন্য ভালো হবে যদি তারা অনলাইনে তাদের পরিচয় গোপন রাখেন।

তার এমন বক্তব্যের কারণে ব্যাপক তোপের মুখে পড়েন তিনি। তিনি এমন একটা সময়ে এই মন্তব্যটি করলেন যখন কিনা প্রযুক্তি খাতে নারীদের উপস্থিতি বাড়ছে, তাদের জন্য বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। ফলে তার এ ধরনের মন্তব্য কেউই সাদরে গ্রহণ করেননি। শেষ পর্যন্ত টুইটারে ক্ষমা চেয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন গ্রেটহাউস।

৫০ কোটি ইয়াহু অ্যাকাউন্ট হ্যাকিংয়ের শিকার : চলতি বছর সেপ্টেম্বরে ইয়াহু জানায় যে, হ্যাকাররা তাদের অন্তত ৫০০ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টের নাম, ইমেইল ঠিকানা, টেলিফোন নম্বর, জন্ম তারিখ, পাসওয়ার্ড এবং এমনকি নিরাপত্তা প্রশ্ন সহ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য চুরি করেছে।

২০১৪ সালে সাইবার হামলা চালিয়ে প্রতিষ্ঠানটির এ বিপুলসংখ্যক ব্যবহারকারীর তথ্য হাতিয়ে নেয় হ্যাকাররা। সাইবার হামলার ইতিহাসে এটিকে সবচেয়ে বড় তথ্য চুরির ঘটনা বলে ধারণা করা হচ্ছে। যদিও ইয়াহু’র বিশ্বাস হ্যাকাররা কোনো পেমেন্ট কার্ড বা ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য চুরি করতে পারেনি।

সয়লেন্টের বিশেষ বার খেয়ে অসুস্থ বিপুল সংখ্যক মানুষ : জনপ্রিয় অনলাইন খাবার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান সয়লেন্ট গত অক্টোবরে তাদের হালকা খাবারের বিকল্প হিসেবে বিশেষ বার বাজারে নিয়ে আসে। কিন্তু মেসেজ বোর্ডে বেশ কয়েকজন গ্রাহক অভিযোগ করেন যে বিশেষ বার খেয়ে বিপুল সংখ্যক মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বারটি খেয়ে তাদের ঘণ্টার পর ঘণ্টা বমি হয়েছে। পাশাপাশি ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে কিছু মানুষ।

অভিযোগ পাওয়া পর পরই হালকা খাবারের বিকল্প হিসেবে সরবরাহ করা এই সব তরল বার বা স্ন্যাকসজাতীয় পণ্য বাজার থেকে তুলে নেয় সয়লেন্ট।

আইফোন সিক্স ও সিক্স প্লাসে ‘টাচ রোগ’ : গত অক্টোবরে মার্কিন প্রযুক্তি কোম্পানি অ্যাপলের জনপ্রিয় আইফোন সিক্স ও সিক্স প্লাস স্মার্টফোনের ডিসপ্লেতে এক ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। টাচ ডিসপ্লের এই সমস্যাটির কারণে মাঝে মাঝেই টাচ ডিসপ্লে কাজ করত না। সমস্যাটি এতটাই ব্যাপক ছিল যে, এটিকে ডিভাইস দুটির ‘টাচ রোগ’ নাম দেয়া হয়। তবে নভেম্বরে এই সমস্যার সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয় কোম্পানিটি।

বিশ্বব্যাপী ইন্টারনেটে ব্যাপক সাইবার হামলা : এ বছর একই দিনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এবং বিশ্বের প্রধান প্রধান ওয়েবসাইটগুলোতে ক্রমাগত ব্যাপক সাইবার হামলার ঘটনা ঘটে। চলতি বছরের ২১ অক্টোবর ই-কমার্স কোম্পানি অ্যামাজন, স্পটিফাই, নেটফ্লিক্স ও টুইটার থেকে শুরু করে অসংখ্য প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট আক্রান্ত হয়।

ওইদিন সকাল থেকে কয়েকবার সাইবার হামলা চালানো হয়েছিল। তবে কোনো হ্যাকার গ্রুপ, আলোচিত এই সাইবার হামলার কথা স্বীকার করেনি।

নিয়োগ চুক্তি ভঙ্গের দায়ে ম্যাজিক লিপের বিরুদ্ধে মামলা : ম্যাজিক লিপ, কয়েক বিলিয়ন ডলার বাজারমূল্যের একটি স্টার্টআপ কোম্পানি। তবে রহস্যময় ভার্চুয়াল রিয়েলিটির আলোচিত এই প্রতিষ্ঠানটি এখন পর্যন্ত তাদের প্রচারিত প্রযুক্তি বাজারে আনতে পারেনি। গত অক্টোবরে মামলার শিকার হয় কোম্পানিটি। আদ্রিয়ান কায়েলার ও গ্যারি ব্র্যাডস্কি নামের সাবেক দুই কর্মী কোম্পানিটির বিরুদ্ধে মামলা করেন। তাদের অভিযোগ, তাদের অধীনে থাকা ম্যাজিক লিপের শেয়ার জোরপূর্বক ফেরত নেয়া হয়েছে এবং পাশাপাশি তাদের নিয়োগ চুক্তি ভঙ্গ করা হয়েছে।

ম্যাজিক লিপও একটি পাল্টা মামলা দায়ের করেন। যাতে তারা দাবি করেন যে, ওই দুই সাবেক কর্মী যুগল বাণিজ্যিক গোপনীয়তা চুরি করার চেষ্টা করেছিল এবং একটি নতুন কোম্পানি শুরু করার জন্য ম্যাজিক লিপের প্রযুক্তি চুরি করতে চেয়েছিলেন।

ভুয়া সংবাদ পরিবেশনের দায়ে অভিযুক্ত ফেসবুক : এবারের মার্কিন নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্প বিস্ময়কর জয় লাভ করেন। তবে এই জয়ের পেছনে সাধারণ নাগরিকরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভুয়া সংবাদ ছড়ানোকেই দায়ী করেন। বিশেষ করে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরোধীরা অভিযোগ করেন, ফেসবুক তাদের সাইটে ভুয়া সংবাদ প্রশ্রয় দিয়ে নির্বাচন প্রভাবিত করেছে।

যদিও গত নভেম্বরে ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মার্ক জাকারবার্গ এ অভিযোগ অস্বীকার করেন। পরবর্তীতে ফেসবুকে ভুয়া সংবাদ প্রচাররোধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

চাকরি হারানোরও ভয়ে অ্যামাজন কর্মীর আত্মহত্যার চেষ্টা : গত নভেম্বরের অ্যামাজনের একজন কর্মী সিয়াটলে অবস্থিত প্রতিষ্ঠানটির প্রধান কার্যালয়ের ১২ তলা ভবনের ওপর থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।অন্য বিভাগে বদলি এবং কাজের মানোন্নয়নের নোটিশ দেয়ায় তিনি এই কাজটি করেন।

এ ছাড়া তার চাকরি হারানোরও আশঙ্কা ছিল। এ ঘটনা বিগত কয়েক বছরে ধরে চলে আসা অ্যামাজনে কর্মীদের কাজের কঠোর ব্যবস্থাপনা নিয়ে বির্তকের আগুনে ঘি ঢালে।

তথ্যসূত্র : বিজনেস ইনসাইডার

আরও পড়ুন-       প্রযুক্তি খাতের আলোচিত ২০ কেলেঙ্কারি (পর্ব-১)

Share

আরও খবর