১ আগস্ট, অনলাইন ডেস্কঃ দুষ্প্রাপ্যতার কারণে ‘ফ্রগফিশ’ মাছ যতো না বিখ্যাত, তার চেয়ে বেশি বিখ্যাত ছদ্মবেশী ক্ষমতার কারণে। নিজেকে রক্ষা কিংবা শিকার ধরার জন্য এই মাছ কখনও পাথরের মতো, কখনও শ্যাওলার মতো, বালির ঢিবির মতো কিংবা অন্যান্য রূপ ধারণ করতে পারে। আর সে অনুযায়ী বদলাতে পারে গায়ের রং!

আশপাশের কোনো কিছুর সঙ্গে ছদ্মবেশ বা কৃত্রিম চেহারা ধারণের অবিশ্বাস্য ক্ষমতার জন্য এই মাছ ‘ছদ্মবেশী মাস্টার’ হিসেবে পরিচিত। ডেইলি মেইল অনলাইনের খবরে বলা হয়েছে, অ্যাটসুসি সাডাই নামক এক ডাইভার সম্প্রতি ফ্রগফিশের বিরল একটি ভিডিও ধারণ করেছেন। অবিশ্বাস্য ভিডিওটিতে দেখা গেছে, ইন্দোনেশিয়ার সুলাওয়েসি দ্বীপের লাম্বের এলাকার সমুদ্রের পানির তলায় একটি ফ্রগফিশ হেঁটে বেড়াচ্ছে!

অ্যাটসুসি সাডাইয়ের শখ ডাইভিং। তিনি ফ্রগফিশটিকে ‘পাসহ মাছ’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন। তিনি দৃশ্যটি দেখে অভিভূত হন এবং ক্যামেরায় ধারণ করেন।

ফ্রগফিশ অ্যাংলার টাইপের একটি মাছ। এই মাছের আঁশ নেই। এর পরিবর্তে ত্বকে এমন ব্যবস্থা রয়েছে যে, তারা ছদ্মবেশ ধারণ করতে পারে। মুখের সাহায্যে এই মাছ তাদের আকার ১২ গুণ বেশি প্রসারিত করতে পারে। এভাবে তারা অনেক সামুদ্রিক প্রাণিকে ভয় দেখিয়ে শিকার করে।

ভিডিওটিতে একটি ফ্রগফিশকে হেঁটে বেড়াতে দেখা গেছে। এই প্রজাতির সাঁতার কাটার মতো পাখনা নেই। এর পরিবর্তে তারা বুকের পাখনাটিকে পায়ের মতো প্রসারিত করে সমুদ্রের তলদেশে হেঁটে বেড়ায়।

সাডাই গত ২০ বছর বিশ্বের বিভিন্ন ডাইভ পয়েন্টে সব মিলিয়ে ১ হাজারেরও বেশি বার ডাইভ দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘ফ্রগফিশ বিরল হলেও আমি তাদের আগে দেখেছি কিন্তু এভাবে হেঁটে চলাফেরা করছে এমন কোনো ফ্রগফিশ আগে দেখিনি। এটা দেখে সত্যিই আমি আশ্চর্য হয়েছি।’

https://youtu.be/P7l43JazA84

Share

আরও খবর