১০ ফেব্রুয়ারি, নিজস্ব প্রতিনিধিঃ টানা কয়েকদিনের পতন কাটিয়ে সূচক উত্থানে ফিরেছে। সাপ্তাহিক ব্যবধানে দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে সূচক ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা বিরাজ করছে। তবে সূচক বাড়লেও লেনদেনর পরিমাণ কিছুটা কমেছে।

সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হওয়া ৫ কার্যদিবসের মধ্যে এক দিন কমেছে সূচক। তবে সূচক কমলেও এর মাত্রা খুবই সামান্য। আলোচ্য সপ্তাহে লেনদেন কমার পরিমাণ ছিলো ২৩ দশমিক ১৪ শতাংশ।

এদিকে লেনদেনের পরিমাণ কমলেও সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর। গত সপ্তাহে ৩ হাজার ৬৮৬ কোটি ৮১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা এর আগের সপ্তাহে ছিলো ৪ হাজার ৭৯৬ কোটি ৯৩ লাখ টাকার শেয়ার। সেই হিসাবে আলোচ্য সপ্তাহে লেনদেন কমেছে ১ হাজার ১১০ কোটি ১২ লাখ টাকা বা ২৩.১৪ শতাংশ। আর সপ্তাহ শেষে ডিএসইতে গড় লেনদেন হয়েছে ৭৩৭ কোটি টাকা।

বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সপ্তাহিক ব্যবধানে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৪৭.৩৩ পয়েন্ট বা ২.৭৫ শতাংশ বেড়েছে। আর ডিএসইএক্স শরিয়াহ সূচক বেড়েছে ৩০.১৪ পয়েন্ট বা ২.৪০ শতাংশ ও ডিএসই ৩০ সূচক কমেছে ৪৫.৪৭ পয়েন্ট বা ২.৩২ শতাংশ। আর সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে ৩৩২টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২৭৭টির, কমেছে ৩৯টির, অপরিবর্তিত রয়েছে ১৪টির এবং ২টি কোম্পানির লেনদেন হয়নি।

এগুলোর উপর ভর করে মোট ৩ হাজার ৬৮৬ কোটি ৮১ লাখ ৫০ হাজার ৯২৩ টাকা লেনদেন হয়েছে। দৈনিক গড় হিসাবে এ লেনদেন হয়েছে ৭৩৭ কোটি ৩৬ লাখ ৩০ হাজার ১৮৪ টাকা। যা আগের সপ্তাহে মোট ৪ হাজার ৭৯৬ কোটি ৩৯ লাখ ৯৮ হাজার ২৭৯ টাকা লেনদেন হয়েছিল। সে হিসেবে আগের সপ্তাহের তুলনায় ডিএসইতে মোট লেনদেনের পরিমান কমেছে ২৩.১৪ শতাংশ।

মোট লেনদেনের ৯২.৫২ শতাংশ এ ক্যাটাগরিভুক্ত, ২.৫৭ শতাংশ বি ক্যাটাগরিভুক্ত, ৩.৩৮ শতাংশ এন ক্যাটাগরিভুক্ত এবং ১.৫৩ শতাংশ জেড ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে হয়েছে।

এদিকে, দেশের অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসইএক্স বেড়েছে ২৬৬.৩৭ পয়েন্ট ২.৬৫ শতাংশ। সপ্তাহজুড়ে সিএসইতে তালিকাভুক্ত মোট ২৮৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২২৪টি কোম্পানির। আর দর কমেছে ৫২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১২টির। আর সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হয়েছে ২৩৭ কোটি ৪৪ লাখ ৮৯ হাজার ৪৬৬ টাকার শেয়ার।

Share

আরও খবর