আজাদ আবুল কালামআজাদ আবুল কালাম। যিনি পাভেল ভাই নামে থিয়েটার ও মিডিয়া পাড়ায় পরিচিত। এই স্বনামধন্য ব্যক্তিত্ব বাংলাদেশের জনপ্রিয় টিভি ও থিয়েটার অভিনেতাদের মধ্যে অন্যতম। প্রাচ্যনাট গ্রুপ থিয়েটারের কর্নধার ও প্রধান নির্দেশক আড্ডাপ্রিয় ও বন্ধুসুলভ এই মানুষটি আজ ‘টাইমস টু হ্যালো ’র আড্ডায় তার কর্মব্যস্ততা ও নিজের কিছু কথা বললেন।

দি টাইমস ইনফোঃ কেমন আছেন?
আজাদ আবুল কালামঃ ভাল।
দি টাইমস ইনফোঃ বর্তমানে কি নিয়ে ব্যস্ত আছেন-
আজাদ আবুল কালামঃ মঞ্চে শো, নির্দেশনা, মিডিয়ায় অভিনয় আর নিজের লেখালেখি।
দি টাইমস ইনফোঃ বর্তমানে আপনার নির্দেশিত কোন নাটকটি মঞ্চায়িত হচ্ছে-
আজাদ আবুল কালামঃ অনেকগুলো নাটকই মঞ্চে নিয়মিত আসছে। তবে নতুন বলতে গেলে ট্রাজেডি পলাশবাড়ী।
দি টাইমস ইনফোঃ প্রাচ্যনাট সবসময় একটু আলাদা ফর্মে কাজ করে কেন?
আজাদ আবুল কালামঃ আলাদা তো কোন ফর্ম নেই। তবে আমরা যারাই কা করছি তা ছোট কিংবা বড় সবাই এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করি। আমরা সবসময় নতুনত্ব খুঁজি কাজে। বলতে পারেন নিজের সাথে নিজের একটা চ্যালেঞ্জ থাকে।
দি টাইমস ইনফোঃ এতদিন পরে মিডিয়ায় নির্দেশনা দিচ্ছেন-
আজাদ আবুল কালামঃ এতদিন কোথায়! আমি তো অনেক আগে থেকেই নির্দেশনার কাজ করছি। বলতে পারেন সরাসরি নির্দেশনা দিলাম কিছুদিন আগে। তবে আমার মূল লক্ষ্য সিনেমা।
দি টাইমস ইনফোঃ আপনার পরিচালিত সিনেমা কবে দেখতে পাচ্ছি-
আজাদ আবুল কালামঃ সিনেমার কিছুটা কাজ করেছি। এখন অর্থের জন্য কাজ বন্ধ আছে। অর্থ জোগান হলেই আবার কাজ শুরু করব।
দি টাইমস ইনফোঃ বর্তমান মিডিয়া ও থিয়েটারের অবস্থান নিয়ে আপনার অভিমত কি?
আজাদ আবুল কালামঃ সবখানেই মন্দা চলছে। আর এর পিছনে রাজনীতি, রাষ্ট্র কর্তৃক চাপানো ভীতি, মৌলবাদ সবকিছু জড়িত। কারণ ভীতি থাকলে আর্ট করা যায়না। আর্ট কালচার করার জন্য মুক্ত সামাজিক পরিবেশ দরকার। দম বন্ধ করা জায়গায় আর্ট হয়না।
দি টাইমস ইনফোঃ মিডিয়ার নেতিবাচকতা সম্পর্কে আপনার অভিমত কি-
আজাদ আবুল কালামঃ নেতিবাচকতা আমাদের জাতিগত সমস্যা। ছোট বেলা থেকে আমরা শুনি, বড় হওয়া যে শিক্ষা মানে হল চাকরি করা ব্যবসা করা। কিন্তু আর্ট কালচারও যে শিক্ষা সেটা আমরা মানিনা। আর একটা ছেলে বা মেয়ে গান করে, ছবি আঁকে কিংবা অভিনয় করে মানে সে বকে গেছে। এই ধারনাটা আমাদের পারিবারিক অরিয়েন্টেশনের অভাবে হচ্ছে।
দি টাইমস ইনফোঃ শিল্পী হিসেবে আপনার সামাজিক দায়বদ্ধতা কোথায়-
আজাদ আবুল কালামঃ আমি আর্ট করি আর তার ভিতড় থেকেই আমি সামাজিক দায়বদ্ধতার ভিতড় থাকি। আর এর জন্য যদি আমার কোথাও দাঁড়িয়ে কথা বলতে হয় শ্লোগান দিতে হয় আমি তা করতেও রাজি।
দি টাইমস ইনফোঃ এখন রেপিডলি কিছু প্রশ্ন করি-
আজাদ আবুল কালামঃ হ্যাঁ, নিশ্চয়ই।
দি টাইমস ইনফোঃ পছন্দের খাবার?
আজাদ আবুল কালামঃ আমি সর্বভুখ।
দি টাইমস ইনফোঃ পছন্দের রং?
আজাদ আবুল কালামঃ সাদা ও কালো।
দি টাইমস ইনফোঃ পছন্দের ফুল?
আজাদ আবুল কালামঃ গন্ধহীন ফুল। দেখতে সুন্দর হতে হবে।
দি টাইমস ইনফোঃ অবসরে কি করেন-
আজাদ আবুল কালামঃ আমার অবসর বলে কিছু নেই। আমি আড্ডা দেয়ার সময়ও কাজ নিয়ে আলোচনা করি।
দি টাইমস ইনফোঃ এত ব্যস্ততার ভিতরে পরিবারকে কখন সময় দেন?
আজাদ আবুল কালামঃ আমার অফিস মানে আমার বাসা। লেখালেখি কিংবা অন্য সব কাজ আমি বাসায় বসেই করি। তাই পরিবারের কাছাকাছিই বেশিক্ষন থাকি আমি।
দি টাইমস ইনফোঃ নতুনদের জন্য আপনার কি বার্তা থাকবে?
আজাদ আবুল কালামঃ যে সর্ট কাট ওয়ে যে খুঁজবে সে গাড্ডায় পড়বে। তাই সর্ট কাট ওয়ে না খুঁজি।
দি টাইমস ইনফোঃ আপনাকে অনেক ধন্যবাদ আপনার এত ব্যস্ততার মাঝে আমাদের সময় দেয়ার জন্য।
আজাদ আবুল কালামঃ আপনাদেরকেও অনেক অনেক ধন্যবাদ। ভাল থাকবেন।

Share

আরও খবর