২৬ ফেব্রুয়ারি, অনলাইন ডেস্কঃ নানা রকম ডিনারের অভিজ্ঞতা অনেকেরই রয়েছে। তবে বিশ্বে এই প্রথমবারের মতো এমন এক ডিনার ব্যবস্থার আয়োজন করা হয়, যেখানে ডিনারের সময় ছিল অঙ্গ ব্যবচ্ছেদ প্রদর্শনী!

যুক্তরাজ্যের অ্যানাটমি ল্যাব লাইভ-এর শিক্ষক স্যাম পিরি এ ধরনের ইভেন্ট আয়োজনে অনুপ্রাণিত হন, জীববিদ্যায় অধ্যয়নরত স্কুল শিক্ষার্থীদের শুকরের অঙ্গ ব্যবচ্ছেদ দেখে আনন্দিত হওয়ার ঘটনা থেকে।

অ্যানাটমি ল্যাব লাইভ-এর শিক্ষক স্যাম পিরি সম্প্রতি ইংল্যান্ডের বার্মিংহামের ‘ভিলেজ হোটেল ক্লাব সলিহুল’ এর ব্যানকুইট হল রুমে একটি ডিনার অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন, যেখানে শেফিল্ড হাসপাতালের সহায়তায় অপারেশন থিয়েটার তৈরি করা হয়।

ইভেন্টটি শুরু হয় ভালো ডিনারের সঙ্গে। রোস্ট আলু ও সবুজ মটরশুটির সঙ্গে পরিবেশিত স্যামন মাছ, রোস্ট বাটারনাট স্কোয়াশ এবং গাজর, আপেল পাই এবং কাস্টার্ড দ্বারা অনুসৃত, ওয়াইন সহ আরো অনেক খাবার। আর এরপরে কি হতে চলেছে তার একটি মাত্র সূত্রই ছিল যে, সব টেবিলগুলোর মধ্যে একদম মাঝখানে ছিল একটি স্থানান্তরযোগ্য টেবিল যেটিতে ছিল মেডিকেল সামগ্রী।

খাবার পর্ব শেষ হওয়ার পর অপারেশন থিয়েটার এর পর্দা তোলা হয়। যেখানে টেবিলের ওপর একটা লাশ রাখা হয়। এরপর অপারেশনের ড্রেস পরিহিত প্যাথলোজিস্ট স্যাম পিরি ব্যবচ্ছেদ শুরু করেন। তিনি হৃদপিণ্ড এবং ফুসফুস উঁচু করে ধরেন যেন সকলে তা ভালোভাবে দেখতে পারে। তারপর সেগুলো স্টেইনলেস স্টিলের টেবিলের ওপর রেখে দেন।

টেবিলের ওপর রাখা মানুষের লাশটি ছিল প্লাস্টিকের আর এর ভেতরে থাকা অঙ্গগুলো ছিল শুকরের। যেহেতু মানুষ এবং শুকরের অঙ্গ সমূহের গড়ন অনেকটা একই রকম তাই এই আয়োজন।

এমন আয়োজন প্রথমবারের মতো করা হয়েছিল। কিন্তু এতেই এর জনপ্রিয়তা অনেকগুণ বেড়ে যায়। ইতিমধ্যে কার্ডিফ, ম্যানচেস্টার, নিউক্যাসল এবং ব্ল্যাকপুল পারফরম্যান্সের জন্য সব টিকেট বিক্রি হয়ে গিয়েছে।

স্যাম দর্শকদের জন্য মস্তিষ্ক, হার্ট এবং ফুসফুস ব্যবচ্ছেদ করে দেখান এগুলো কিভাবে কাজ করে। তিনি অঙ্গগুলো প্রতিটি টেবিলের কাছে নিয়ে যান। যেন সকলে এগুলো কাছ থেকে দেখতে পারেন।

তিনি ব্যাখ্যা করেন, বাম ফুসফুস কেন ডান ফুসফুসের থেকে ছোট। তিনি বলেন, হৃদপিণ্ডকে স্থান করে দেয়ার জন্যই এমন ব্যবস্থা। তিনি ফুসফুসের মধ্যে একটি প্লাস্টিকের পাইপ ঢুকান এবং অন্য প্রান্ত নিজের মুখের ভেতর নেন এবং ফুঁ দেন। এবং এতে দেখা যায় ফুসফুস বেলুনের মতো ফুলে উঠেছে।

এরপর তিনি ব্রেইন দেখান, যা টেবিলের ওপর অনেকটা দুধ ও শস্যচূর্ণ সহযোগে তৈরি একরকমের জেলির মতো এবং গন্ধ অনেকটা কসাইয়ের দোকানের আবর্জনা স্তুপ করে রাখা পাত্রের মতো।

এই ডিনার অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া সাবেক ফরেনসিক বিজ্ঞান ছাত্র কেইলি ব্রাউন বলেন, নিঃসন্দেহে এটা ছিল একটা ভীতিপূর্ণ ডিনার পার্টি। এগুলো দেখতে আমার কোনো সমস্যা ছিল না কিন্তু আমি এগুলোর গন্ধ মোটেই সহ্য করতে পারছিলাম না, কারণ আমি মাংস খাই না।

তবে সবাই কিন্তু অত খুঁতখুঁতে ছিলেন না। মধ্য বিরতিতে অনেকেই রাবারের গ্লাভস পরে এগুলো ধরে ধরে ছবি তোলার জন্য পোজ দিয়েছেন। বার্মিংহামের বাসিন্দা ৩২ বছর বয়সী ইভ হাবল্ডি বলেন, আমি হিউম্যান বডি নিয়ে সবসময় খুব উৎসাহী কিন্তু এমনটা আমি প্রথম দেখলাম। অভিনব এই আয়োজনে অংশ নেওয়া আরো কয়েকজন বলেন, ক্লাশের সব ধরনের তাত্ত্বিক তথ্য জানার পর, দেহের ভেতরের অংশগুলো সম্পর্কে জানার এটা একটা দারুন সুযোগ ছিল। পাশাপাশি অনেক মজার ও উপভোগ্য ছিল।

দ্বিতীয়ার্ধে স্যাম পাকস্থলী এবং নাড়ি বের করে আনেন যা আগের মতোই সমান দুর্গন্ধ যুক্ত। এরপরই স্যাম পিত্তথলি দেখান এবং সেখানে সবুজ রঙের পিত্ত দেখান যেটিকে স্যাম ডাইনোসরের ডিমের সঙ্গে তুলনা করেন।

এই শুকরের অঙ্গগুলো কসাইয়ের দোকান থেকে আনা হয়েছে, যারা কিনা প্রতিদিন ৩৫০০ শুকর নিধন করে শুধু সসেজ এবং বেকনে শুকরের মাংস চাহিদা মেটানোর জন্য।

স্যাম এর কোম্পানি ভিভিট অ্যাপারেটাস এর এই প্রদর্শনীর জন্য বিশেষ লাইসেন্স আছে। তাদের টিম অঙ্গ এবং হাতে আঁকা ডায়াগ্রামের মাধ্যমে আমাদের শরীরের ওপর রোগের প্রভাব বর্ণনা করে থাকেন।

সন্ধ্যায় অনুষ্ঠান শেষে ব্যবচ্ছেদকৃত অঙ্গগুলো হলুদ একটি ডাস্টবিনে ফেলে দেয়া হয় যেটি ক্লিনিক্যাল বর্জ্য পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত হয়। স্যাম এর পিতা কেভিন, যিনি এই প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী বলেন, এটাই পুরো আয়োজনের সবচেয়ে জঘন্য অংশ। এখান থেকে যে দুর্গন্ধ হয় তা প্রকৃত অর্থেই ভয়ানক।

তথ্যসূত্র : মিরর

Share

আরও খবর