২২ জানুয়ারি, অনলাইন ডেস্কঃ বিশ্বের সবচেয়ে বড় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ। ফেসবুকে তার পেজ রয়েছে এবং বর্তমানে পেজটিতে নিয়মিত পোস্ট করা হয়। তার ফলোয়ারের সংখ্যা প্রায় ৯ কোটি।

মাত্র পাঁচ বছর আগেও নিজের এই পেজ নিয়ে সমালোচনায় ছিলেন তিনি। কারণ ফেসবুকের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী সকলকে তাদের জীবনের তথ্যে একে অপরের সঙ্গে শেয়ার করার সুবিধা যিনি দিয়েছেন, ফেসবুকে সেই তিনিই ছিলেন গোপনীয় ব্যক্তি! কেননা মার্ক জাকারবার্গ তার পেজে তেমন কোনো পোস্ট করতেন না, ফলে তার তথ্য গোপন ছিল তারই সামাজিকযোগাযোগ মাধ্যমে। তার সম্পর্কে মানুষজনের ধারণা ছিল কমবয়সী ধনকুবের, একই রঙের পোশাক পরা ব্যক্তি- এ জাতীয়।

কিন্তু বিগত কয়েক বছরে তার ফেসবুক পেজে নিয়মিত মুগ্ধকর সব স্ট্যাটাস, ছবি ও ভিডিও পোস্টের দরুন রসবোধ এবং বুদ্ধিতে তার ভাবমূর্তি এখন সকলের কাছে অনেকটা ‘ঈশ্বরের উপহার’ এর মতোই। ২০১৪ সালের শেষের দিক থেকে তিনি তার পেজে কমেন্টের সুযোগ সকলের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছেন। তার পোস্টগুলোতে এখন লাইক, শেয়ার আর কমেন্টের বন্যা।

আমাদের প্রায় সকলেরই ধারণা যে, মার্ক জাকারবার্গ তার ফেসবুক পোস্ট নিজেই লিখেন। কিন্তু সত্যি কথা হচ্ছে, এ ধারণা আসলে ভুল! কারণ জাকারবার্গ তার ফেসবুক পোস্ট নিজে দেন না। নিশ্চয় এবার প্রশ্ন জাগছে, জাকারবার্গের এই ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তাহলে চালায় কে?

ব্লুমবার্গের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জাকারবার্গের ফেসবুক পেজ পরিচালনার জন্য অন্তত ১২ জন ফেসবুক কর্মী রয়েছেন এবং জাকারবার্গকে তারা সাহায্য করে থাকেন তার ফেসবুক পোস্ট এবং বক্তৃতা লেখার ক্ষেত্রে।

এমনকি কয়েকজন নিয়োজিত আছেন অনলাইনে জাকারবার্গের ভাবমূর্তি যেন ক্ষুন্ন না হয় সেজন্য, জাকারবার্গকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য, ট্রল এবং স্প্যাম মুছে দেওয়ার জন্য।

কেবল যে জাকারবার্গের পেজ চালানোর জন্য নির্দিষ্ট টিম রয়েছে তা নয়, পাশাপাশি পরিবার ও তার ভ্রমণের ছবিও তারা তুলে থাকেন। ফেসবুকে আমরা জাকারবার্গের ব্যক্তিগত কিংবা ভ্রমণের ছবির যেসব পোস্ট দেখতে পাই, সেগুলো তার ব্যক্তিগত ফটোগ্রাফারদের তোলা।

উল্লেখ্য, ফেসবুকে ব্যবহারকারীদের বিশ্বের যেকোনো পেজ ব্লক করা সুযোগ থাকলেও, মার্ক জাকারবার্গকে ব্লক করার কোনো সুযোগ নেই।

তথ্যসূত্র: স্কুপহুপ

Share

আরও খবর