১৯ মার্চ, নিজস্ব প্রতিনিধিঃ আত্মঘাতী হামলা চালিয়েছে এক জঙ্গি- এমন খবরে কৌতূহলে শুক্রবার বিকেলে ঢাকার আশকোনায় র‌্যাবের অস্থায়ী ক্যাম্পের সামনে এসেছিলেন আবু হানিফ মৃধা (৩২)। কিন্তু সেখানে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কড়া নিরাপত্তায় ভয় পান তিনি।

হয়তো আতঙ্কিত ছিলেন আবু হানিফ। তাই দ্রুত সে জায়গা ত্যাগ করতে গিয়ে মুনমুন কাবাব ঘরের পেছনে পড়ে আহত হন। এ অবস্থায় তাকে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে শুক্রবার রাতেই তিনি মারা যান।

শনিবার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে বরাত দিয়ে পুলিশ জানিয়েছে, রাস্তায় তিনি হার্ট অ্যাটাক করেছিলেন। পরবর্তীতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। পুলিশ শনিবার দুপুরে কুর্মিটোলা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে সন্ধ্যায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

বিমানবন্দর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এজাজ শফি জানান, শুক্রবার আশকোনায় পুলিশের সরব উপস্থিতি দেখে ভয়ে তিনি সেখান থেকে সরে যেতে চান। এ সময় তিনি রাস্তায় পড়ে গেলে গুরুতর আহত হন। পরে তাকে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করানো হলে ওইদিনই মারা যান।

ঢামেকে লাশ আসার পরই ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করেছেন ঢামেক হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ।

তিনি জানান, লাশের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি মারা গেছেন। বিশদ জানার জন্য আলামত হিসেবে হার্ট ও ফুসফুস সংগ্রহ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, মৃত হানিফ বরগুনা জেলার আমতলি উপজেলার আমড়াগাছিয়া গ্রামের সোবহান মৃধার ছেলে।

Share

আরও খবর