২৭ সেপ্টেম্বর, বিনোদন ডেস্কঃ ধ্বনি, ঢাকার নতুন আবৃত্তি প্রযোজনা ‘কথামানবী’। আগামী ৬ অক্টোবর, শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকার ছায়ানট মিলনায়তনে প্রযোজনাটির তৃতীয় মঞ্চায়ন অনুষ্ঠিত হবে।

মহাভারতে পঞ্চপাণ্ডবের স্ত্রী দ্রৌপদী, কখনো নদীরূপে দেবী গঙ্গা, দিল্লির সিংহাসনে বসা প্রথম নারী সুলতানা রাজিয়া এবং বচন রচয়িতা খনা। ইতিহাসের উজ্জ্বল চরিত্র এরা সবাই। সঙ্গে আরো আছেন পরিবেশ বাঁচাতে আন্দোলন করা নারী মেধা পাটেকর, তালাকের পর স্বামীর কাছ থেকে খোরপোষ আদায়ের জন্য ১৯৮৫ সালে ভারতের আদালতে মামলা করা নারী শাহবানু এবং ইটভাটার শ্রমিক ভারতের পুরুলিয়ার মালতী মুদি। ইতিহাস থেকে তুলে এনে আরেকবার শুনানো হবে এই নারীদের জীবনযুদ্ধের কথা।

ওপার বাংলার কবি মল্লিকা সেনগুপ্ত তার কবিতা কথামানবীতে বলেছেন এসব নারীর কথা। আদি, মধ্য ও আধুনিক যুগে নারীর অবস্থা এবং অবদানের কথা উঠে এসেছে ১ হাজার ২০০ লাইনের কবিতাটিতে। মূলত ইতিহাসের আটজন নারীর আত্মকথনমূলক এ কবিতাটি।

শৌর্যবীর্যের গল্পে ভরা ইতিহাস বইয়ের তলায় মেয়েদের যে গহন কাহিনী চাপা পড়ে আছে, কথামানবী তারই ভাষ্যকার। কথামানবী সেই নারী যে যুগান্তের অপমান আর অবহেলার পরেও ভালোবাসতে পারে, প্রতিবাদ করতে পারে, যে হেঁটে চলে যুগ থেকে যুগান্তরে।

প্রযোজনাটিতে দ্রেীপদী চরিত্রে দেখা যাবে জাকিয়া নূর মিতু, সুলতানা রিজিয়া চরিত্রে মাহফুজা তানিয়া, খনা চরিত্রে সুধা সর্বজয়া এবং মালতী মুদি চরিত্রে ফাল্গুনী তানিয়াকে দেখা যাবে। কথামানবীর ভূমিকায় আবৃত্তি করছেন শ্রাবণী নাসরিন।

এবারের প্রযোজনার বিষয়ে মালতী মুদি চরিত্রে রূপ দিতে যাওয়া ফাল্গুনী তানিয়া বলেন, বর্তমান সময়ে যৌতুক, হত্যা, যৌন নিগ্রহ, ধর্ষণ যেভাবে বেড়ে চলেছে তাতে কথামানবী অত্যন্ত সময়োপযোগী একটি পরিবেশনা। কবিতার ভাষাতেই একে একে মঞ্চে আসবে ইতিহাসের নিপীড়িত, নিগৃহীত ও সাহসী এ চরিত্রগুলো।

Share

আরও খবর