১৯ জানুয়ারি, ইন্টারন্যাশনাল ডেস্কঃ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক বছরের মধ্যে মার্কিন দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে সরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা নাকচ করে দিয়েছেন।

এক বছরের মধ্যেই মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে স্থানান্তরিত হতে পারে বলে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু যে ইঙ্গিত দিয়েছেন তার পরিপ্রেক্ষিতে ট্রাম্প এ তথ্য জানিয়েছেন।

গত ৬ ডিসেম্বর জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। একই সঙ্গে মার্কিন দূতাবাস ইসরায়েলের রাজধানী তেল আবিব থেকে সরিয়ে জেরুজালেমে নেওয়া হবে বলে জানান।

সে সময় ট্রাম্পের এই ঘোষণার পর যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিমা মিত্রসহ আরব বিশ্ব মধ্যপ্রাচ্যের শান্তি প্রক্রিয়া নষ্ট হতে পারে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সমালোচনা করে।

এদিকে গত মাসে ট্রাম্পের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন বলেন, সম্ভবত তিন বছরের আগে মার্কিন দূতাবাস সরানো যাবে না এবং এটা বেশ উচ্চাভিলাষী। এই সময়সীমার মধ্যে প্রশাসনের কর্মকর্তারা একটি উপযুক্ত জায়গা খোঁজার কাজ করবেন। পাশাপাশি কূটনীতিকদের জন্য আবাসনের ব্যবস্থা করবেন।

কিন্তু ভারত সফরে আসা ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু বুধবার নয়া দিল্লীতে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমার মূল্যায়ন হচ্ছে, আপনাদের ধারণার চেয়েও দ্রুতগতিতে এর বাস্তবায়ন হবে- এখন থেকে আগামী এক বছরের মধ্যে।’

নেতানিয়াহুর এই মন্তব্য সম্পর্কে জানতে চাইলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘বিষয়টি তা নয়। এই বছরের শেষের দিকে? আমরা ভিন্ন প্রেক্ষাপট নিয়ে কথা বলছি। আমি আসলে বোঝাতে চাচ্ছি, সেটি হবে অস্থায়ী ভিত্তিতে। যেভাবে বলা হচ্ছে বিষয়টি সেভাবে দেখছি না।এটা হবে না।’

প্রসঙ্গত, মুসলিম, ইহুদি ও খ্রিস্টান ধর্মের অনুসারীদের কাছে পবিত্র ভূমি হিসেবে পরিচিত জেরুজালেম। ১৯৬৭ সালে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের সময় পূর্ব জেরুজালেম দখলে নেয় ইসরায়েল। আর ফিলিস্তিন এই ভূখণ্ডের মালিকানা দাবি করে আসছে। আন্তর্জাতিকভাবে এখনো এই বিবাদের মীমাংসা হয়নি। তবে ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের রাজধানী হবে পূর্ব জেরুজালেম এমনটিই চায় ফিলিস্তিনিরা।

Share

আরও খবর