বুদ্ধিজীবী1বুদ্ধিজীবী, ইহা বিশ্বের অন্যান্য দেশে একটি বিরল প্রজাতি হইলেও বাংলাদেশের মাটি ও জলবায়ু এই প্রজাতির উৎপাদনে অত্যন্ত উর্বর। এইদেশে বানরের সংখ্যার চাইতে বুদ্ধিজীবীর সংখ্যা খুব কম হইবে বলিয়া মনে লয়না। তবে নিশ্চিত বলিতে পারিতাম যদি বানরশুমারির সংখ্যাটা আমার জানা থাকিত। এই জন্য আমায় ক্ষমা করিবেন।

বাংলাদেশের বুদ্ধিজীবী আর বানর এই দুইটি প্রজাতির মধ্যে বেশ সাদৃশ্য বিদ্যমান, যাহা একেবারে সাধারন মানুষেরাও বুঝিতে পারেন। বানর সব সময় অন্যের খাবারের দিকে লোলুপ দৃষ্টিতে তাকাইয়া থাকে আর সুযোগ পাইলেই হানা দিয়া নিজের করিয়া লয়। আর আমাদের বুদ্ধিজীবীরাও বিভিন্ন নামে- বেনামে সংঘ- সংস্থার নামে কাজটি করিয়া থাকেন খুবই শৈল্পিকভাবে। বানর এক ডালে বা একগাছে বেশিক্ষণ বা বেশিদিন থাকিতে পারেনা। একডাল হইতে অন্য ডালে যখন তখন অবাধ বিচরণ তাহাদের। আর আমাদের বুদ্ধিজীবীরাও একস্থানে বেশিদিন থাকিতে পারেন না। বাতাসের সাথে তাহাদের অবস্থান ডান হইতে বামে বা বাম হইতে ডানে বদলাইয়া যাইতে থাকে প্রতিনিয়তই।

হইবেই বা না কেন? মানুষের পরেই যে বুদ্ধিতে বানরের স্থান! তাই ইহাদের সাথে মানুষের মিল থাকাটাই স্বাভাবিক।

দুই মাস আগে টক শোতে বসিয়া যাঁদের গোষ্ঠী উদ্ধার করিলেন, চায়ের কাপে সমালোচনার ঝড় তুলিলেন, দেখা গেল দুই মাস পরে সেই একই ঘটনা সম্পর্কে কথা বলিতে গিয়া সমালোচনার তীর বিপরীত দিকে ঘুরাইয়া দিলেন।

আমরা তাহাদেরকে দেখিয়া শিখি, শুনিয়া শিখি, অবলোকন করিয়া শিখি। ইহারা শিক্ষার আধার। আসলে আধার বলব না আধাঁর বলিব ভাবিতে হইবে।

ইহারা পারেননা এমন কোন কর্ম নাই! ইহাদের জ্ঞান এমন পর্যায়ের যে, যেকোন সময় সাধারন মানুষকে বিভ্রান্ত করিতে পারেন অনায়াসে। তাহারা জানেন, একটা মিথ্যেকে কীভাবে শৈল্পিকভাবে সত্যের কাছাকাছি বা কখনো কখনো সত্যের চাইতেও খাঁটি সত্যে পরিনত করিতে হয়। অথবা সত্যকে মিথ্যায়।

তাহাদের “জ্ঞান বাণে” সাধারণ জন অনেক আগে থেকেই অতিষ্ঠ! আখ্যায়িত হয়েছেন জ্ঞানপাপী বলিয়া। অবশ্য তাতে ইহাদের চরিত্রের বিশেষ কোন পরিবর্তন হইয়াছে বলিয়া মনে হয়না।।

ইহাদের ধৈর্য্যশক্তিও সৃষ্টি কর্তার রহমতে আসাধারণ! মানে চামড়াখানি গন্ডারের!

ক্ষমতাসীন বা ক্ষমতার বাহিরে থাকা রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতাগন তাহাদেরকে যতই সাবান সোডা দিয়ে ধৌত করিয়া লননা কেন; তাহারা সবসময়ই হাসিমুখে সহ্য করিয়া যান। কারন প্রতিবাদ করিলে সুবিধা বঞ্চিত হইবার অগাধ সম্ভাবনা রহিয়াছে। কাহারো ক্ষেত্রে ইহা চলমান সম্ভাবনা কাহারোবা ভবিষ্যত সম্ভাবনা। অবশ্য সংখ্যায় কম হইলেও স্বল্পসংখ্যক সৎ এবং সর্বজন শ্রদ্ধেয় বুদ্ধিজীবী এই মাটিতেই আছেন। তাঁহাদের নিয়া কথা বলা কিংবা লিখিবার ধৃষ্ঠতা আমি দেখাইতেছিনা।

চলবে……

এই মন বুদ্ধিজীবী হইতাম চায় (পর্ব ২)

মাহফুজুল ইসলাম সাইমুম।
তারিখঃ ০৯-১১-২০১৫।

Share

আরও খবর