১১ অক্টোবর, বিনোদন ডেস্কঃ বছরজুড়েই বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে প্রদর্শিত হয় দেশি-বিদেশি মঞ্চ নাটক। তবে অন্যান্য সময়ের চেয়ে নাট্যোৎসবগুলোতে দর্শকদের উপস্থিতি তুলনামূলক বেড়ে যায়।

আগামীকাল ১২ অক্টোবর বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সংগীত ও নৃত্যকলা ভবন অডিটোরিয়ামে শুরু হতে যাচ্ছে ‘প্রাঙ্গণেমোর নাট্যসপ্তাহ-২০১৭’। সাতদিনব্যাপী এ উৎসবে প্রাঙ্গণেমোরের ৭টি নাটক মঞ্চস্থ হবে। রবীন্দ্র নাট্যচর্চার সাফল্যের ধারাবাহিকতায় প্রাঙ্গণেমোর মঞ্চস্থ করবে ‘আমি ও রবীন্দ্রনাথ’। নাটকটির রচনা ও নির্দেশনায় রয়েছেন নূনা আফরোজ।

বর্তমানে নাট্যদল প্রাঙ্গণেমোরের ১২টি নাটক চলমান রয়েছে। এর মধ্য থেকে ৭টি নাটক বাছাই করে এই নাট্যসপ্তাহের আয়োজনা করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে নূনা আফরোজ বলেন, ‘আমাদের নাটকগুলো ঘিরে দর্শকদের আলাদা একটা চাহিদা রয়েছে। ১২টি নাটক চলমান থাকার কারণে এসব নাটকের প্রদর্শনী ঢাকার মঞ্চে অল্প দিনের ব্যাবধানে মঞ্চস্থ করা সম্ভব হয় না। দেখা যায়, একটি নাটক সার্কেল করে ঘুরে আসতে ২-৪ মাস সময় লেগে যায়। কিন্তু দর্শকরা জানতে চায় তাদের পছন্দের নাটকটির প্রদর্শনী কবে? এই আগ্রহটা দর্শকদের মধ্যে রয়েছে। তাই দর্শকদের কথা মাথায় রেখেই আমরা প্রাঙ্গণেমোর নাট্যসপ্তাহের আয়োজন করছি।’

বেশ কিছুদিন ধরে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে। গত ৬ অক্টোবর দেশি-বিদেশি নাট্যদলের ২৯টি নাটক নিয়ে বাংলাদেশ শিল্পকলায় শুরু হয়েছে গঙ্গা-যমুনা নাট্য ও সংস্কৃতি উৎসব ২০১৭। দুই বাংলার শিল্পীদের পারস্পরিক বন্ধনকে দৃঢ় করতে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার তিনটি মিলনায়তন ও উন্মুক্ত চত্বরে এই উৎসব চলছে। এরই মধ্যে বেশ জমেও উঠেছে উৎসবটি।

নাট্যোৎসব নাট্য চর্চা কিংবা ঢাকার মঞ্চ নাটকের উন্নয়নে কতটা ভূমিকা রাখছে? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘নাট্য উৎসবকে ঘিরে নিঃসন্দেহে নতুন কিছু দর্শক তৈরি হয়। কিছু ভালো নাটকেরও সমাগম ঘটে। থিয়েটারের সঙ্গে যারা জড়িত, এই উৎসবকে ঘিরে তাদের মধ্যে প্রাণের সঞ্চার হয়। এটা শুধু নাট্যোৎসব বলে কথা নয়, যে কোনো উৎসবকে ঘিরে মানুষের মধ্যে প্রাণের সঞ্চার ঘটে। উৎসবকে কেন্দ্র করে নতুন অনেক ছেলে-মেয়ে তৈরি হয়। যারা থিয়েটারের কাজে এগিয়ে আসে। থিয়েটার চর্চাকে বেগবান করে। এমন নানাবিধ বিষয় রয়েছে যা উৎসবকে ঘিরে ঘটে থাকে। তাই বিষয়টি আমি ইতিবাচকভাবেই দেখি।’

প্রাঙ্গণেমোর নাট্যদলের তরুণ নাট্যকর্মী রামিজ রাজু। বর্তমান সময়ে ঢাকার মঞ্চ যে ক’জন তরুণ অভিনেতা দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন তাদের মধ্যে অন্যতম তিনি। এ প্রসঙ্গে রামিজ রাজু বলেন, ‘অধিকাংশ ক্ষেত্রে আমাদের মঞ্চনাটকের দর্শক আমাদের নাট্যকর্মীরা। সমস্ত মানুষের কাছে আমাদের থিয়েটার শতভাগ এখনো পৌঁছাতে পারেনি। কিন্তু এই উৎসব উপলক্ষ প্রত্যেকটি দলের একটা বারতি প্রচার, সাজসজ্জা থাকে। আর দলের বাছাই করা নাটকগুলো উৎসবে প্রদর্শিত হয়। এসব কারণে সাধারণ দর্শক যারা রয়েছেন তাদের মধ্যে এক ধরনের উদ্দীপনা তৈরি হয়। উৎসবে যখন সাধারণ দর্শক ভালো নাটক দেখতে পান তখন সারা বছর নাটক দেখার একটা আগ্রহ তাদের মধ্যে তৈরি হয়। আর এ কারণে আমি বলব, নাট্যোৎসব একটি ইতিবাচক ভূমিকা রাখছে।’

১২ অক্টোবর প্রাঙ্গণেমোর নাট্যসপ্তাহের উদ্বোধন করবেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী সারা জাকের। উদ্বোধনী মঞ্চে মঞ্চস্থ হবে ‘আমি ও রবীন্দ্রনাথ’ নাটকটি। এ ছাড়া ঈর্ষা’, ‘শ্যামা প্রেম’, শেষের কবিতা’, ‘বিবাদী সারগাম’ ‘আওরঙ্গজেব’, ‘কনডেমড সেল’ নাটকটি ধারাবাহিকভাবে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টায় মঞ্চস্থ হবে।

Share

আরও খবর