অফিসের আচরণগুলো২৯ ডিসেম্বর, লাইফস্টাইল ডেস্কঃ চাকরির ক্ষেত্রে আমাদের কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়। আর অফিসে আমাদের ব্যবহারও গ্রহণযোগ্য হয়া উচিত। যাতে অন্যরা বিরক্ত না হয়। কিন্তু প্রায় আমাদের সবার অফিসেই এমন একজন থাকেন যার আচরণ অন্যদের বিরক্তের কারণ হয়ে দাড়াঁয়।

আর অনেকেই চাকরির ক্ষেত্রে মেধার চেয়ে আচরণের দিকে বেশি নজর দেয়। তাই যোগ্যতা যতই থাকুক আমাদের অবশ্যই অফিসিয়াল কিছু আচরণ মেনে চলা উচিত।

অফিসে যে কাজগুলো করা উচিত নয়-
পিছনে নিন্দা করা: সহকর্মীদের পিছনে তাদের বিরুদ্ধে সমলোচনা করা খুবই খারাপ অভ্যাস। এটা অনেকে ইচ্ছাকৃতভাবে করে থাকে আবার অনেকেই অনইচ্ছাকৃতভাবেই করেন। তবে চাকরির ক্ষেত্রে এটি আপনার সবচেয়ে বড় শত্রু। অনেকেই সমস্যায় পড়ে অন্যের সমলোচনা করে কিন্তু এতে সমস্যা আরও বেড়ে যায়।

গল্প করা: অনেকেই অফিসে বসে গল্প করে সময় কাটায়। এতে অফিসের অন্যরা বিরক্ত হয়। অতিরিক্ত কথা বলা অনেক সময় আপনার প্রতি অন্যদের নেতিবাচক ধারণা তৈরি করবে।

চাকরি অপছন্দ বলা: যে চাকরি করছেন সেটি আপনার অপছন্দ বলে ঘোষণা করা উচিত না। এক্ষেত্রে আপনি চাকরি হারাতেও পারেন। এর ফলে বসদের আপনার প্রতি নেতিবাচক ধারণা জন্মাবে এবং তারা কাজের প্রতি মনযোগী কাউকে খুজে নিবে।

গন্ধযুক্ত খাবার খাওয়া: যদি আপনার আলাদা রুম না থাকে তাহলে গন্ধযুক্ত খাবার না খাওয়া উচিত। কেননা খাবারের গন্ধ অন্যদের বিরক্ত করতে পারেন।

অন্যের ক্ষতি করা: সহকর্মীরা আপনার ক্ষতি করছে বলে আপনিও যদি দ্বিগুন উৎসাহে তাদের ক্ষতি করতে যান, তাহলে ব্যাপারটা মোটেই ভাল দাঁড়াবে না। এটা করতে যাবেন না। কেউ আপনার বিরুদ্ধে করলে সেটা ঠেকাবার চেষ্টা করুন। নিজে আবার নতুন করে জটিলতা তৈরি করতে যাবেন না।

মিথ্যা বলা: অনেক সময় সাধারণ কোন ঘটনা এড়াতে আমরা মিথ্যা বলি। কিন্তু মিথ্যার প্রবণতাই হল সত্য বের করে আনা। আর সেই পর্যন্ত আপনাকে একটি মিথ্যার জন্য অনেকগুলো মিথ্যা বলতে হবে। আর এক্ষেত্রে আপনি অফসে মাথ্যাবাদী হিসেবে পরিচিত হবেন।

সবার সাথে শেয়ার করা: অফিসের সবার সাথে সব ব্যাপার শেয়ার করতে যাবেন না। সহকর্মীদের বিপক্ষে নিজের দল পাকানোর চেষ্টা করবেন না।

অকারণে ডেস্ক ছেড়ে হাঁটা: কাজ করতে করতে আমরা প্রায় ক্লান্ত হয়ে যাই এক্ষেত্রে একটু হেঁটে আসলে ভাল লাগে। কিন্তু অনেকেরই অযথা ডেস্ক ছেড়ে হাঁটার অভ্যাস আছে।

Share

আরও খবর